১ নভেম্বর থেকে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিলেন খাদ্যমন্ত্রী - TBNEWS

Breaking

TBNEWS

explore the world news

Post Top Ad

READ ALSO

                                                             

Wednesday, 1 November 2017

১ নভেম্বর থেকে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিলেন খাদ্যমন্ত্রী

১ নভেম্বর থেকে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিলেন খাদ্যমন্ত্রী{www.techxpertbangla.com}
photo credit-INT
সরকারিভাবে অক্টোবর মাস থেকে নতুন খরিফ মরশুম শুরু হলেও, ১ নভেম্বর থেকে নতুন খরিফ মরশুমের ধান কেনার কাজ শুরু করছে রাজ্যের খাদ্য দফতর। বিগত বছর খরিফ মরশুম শুরুর প্রাক্কালে কেন্দ্রীয় সরকার পাঁচশো ও হাজার টাকাব নোট বাতিল ঘোষণা করার পরিপ্রেক্ষিতে ধান কেনাবেচার ক্ষেত্রে চরম নৈরাশ্য শুরু হয়। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আড়তদার, রাইস মিল মালিক ও মধ্যস্বত্বভোগীরা চাষিদের যে শুধু চরম হয়রানির মুখে ফেলে তাই নয়, তাদের আর্থিকভাবে চরম লোকসানের মুখে পড়তে হয়। ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে না পেরে, গণবণ্টন ব্যবস্থা চালু রাখার তাগিদে শেষ পর্যন্ত রাজ্য সরকারকে রাইস মিল মালিকদেরই শরণাপন্ন হতে হয়। রাজ্য সরকারকে যাতে আর আগের পরিস্থিতির শিকার হতে না হয়, সেজন্য খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থা ফুড কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া (এফসিআই)-কেও বেশ কিছু বিধিনিষেধের কথা রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে রাজ্য খাদ্য দফতরকে যাতে ধান, চাল বা খাদ্যশস্য মজুতের বিষয়ে কোনও সমস্যায় পড়তে না হয়, সেজন্য রাজ্য খাদ্য দফতর ৮০০ কোটি টাকা খরচ করে বেশ কয়েকটি বড় মাপের গুদাম তৈরির পরিকল্পনা নিয়েছে। প্রতিটি গুদামে ৫০ হাজার টন করে খাদ্যসামগ্ৰী মজুত থাকবে। এ জন্য রাজ্যের অর্থ দফতর ৫০০ কোটি টাকা প্রথম দফায় মঞ্জুর করেছে।
সব গুদামঘর তৈরি হয়ে গেলে রাজ্য খাদ্য দফতরের হাতে ৫ লক্ষ টন চাল বা খাদ্যসামগ্ৰী মজুত রাখার ক্ষমতা চলে আসবে। আর অতীতের গুদামগুলিকে ধরলে রাজ্য খাদ্য দফতরের হাতে প্রায় ১৪ লক্ষ টন চাল বা খাদ্যসামগ্ৰী মজুতের ক্ষমতা তৈরি হবে। চাষিরা উৎপাদিত ধানের ন্যায্য মূল্য পাওয়া থেকে যাতে কোনওভাবেই বঞ্চিত না হন, সেটা সময় থাকতেই সুনিশ্চিত করতে চাইছে রাজ্য খাদ্য ও সমবায় দফতর। আগামী বছর রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনও রয়েছে। তাই চাষিরা ধানের সঠিক মূল্য না পেলে পঞ্চায়েত নির্বাচনে তার প্রভাব পড়া এবং বিরোধীদের হাতে সমালোচনার অস্ত্ৰ চলে যাওয়ার সম্ভাবনাও থেকে যাবে। তাই সেই অস্ত্রকে সময় থাকতেই ভোতা করেও দিতে চাইছে। সরকার। চাষিরা ধান কেনাবেচা সংক্রান্ত কোনও সমস্যায়। সেজন্য খাদ্য দফতর ১৮০০-৩৪৫-৫৫০৪ এবং ১৮০০-৩৪৫-১৯৬৭ এই দু'টি টােল ফ্রি টেলিফোনও চালু করে দিয়েছে। চাষিদের কাছ থেকে সরকারিভাবে সরাসরি ধান কেনার বিষয়ে গ্রামীণ কৃষি সমবায় সমিতিগুলিকে অবহিত করতে ৩০ অক্টোবর কলকাতার রবীন্দ্রসদনে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ও সমবায়মন্ত্রী অরূপ রায় একটি বৈঠক ডাকেন। ওই বৈঠকে বিভিন্ন সমবায় সংস্থার কর্তা, সরকারি আধিকারিকরা ছাড়াও উপস্থিত। ছিলেন রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ও শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৈঠকে ফুড কমিশনার অনুপ আগরওয়াল জানিয়ে দিয়েছেন যে, আগামী এপ্রিল-মে মাসের মধ্যে ৫২ লক্ষ টন ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা ধার্য হয়েছে এবং ওই

লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে হবে। আর এই নতুন খরিফ মরশুমে ধান কেনার জন্য প্রথমেই সরকার প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকার ব্যবস্থা করেছে। এই টাকার মধ্যে রাজ্য অর্থ দফতর ৪ হাজার ১০০ কোটি টাকা দিয়েছে। আর ২ হাজার কোটি টাকা সরকারি সংস্থা কনফেড ও কেনফেড় এবং ইসিএফসি ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ হিসেবে নিয়েছে। আর যে ৫২ লক্ষ টন ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা ধার্য হয়েছে, তার মধ্যে সমবায় সমিতিগুলি কিনবে ৩৪ লক্ষ টন ধান আর রাজ্য খাদ্য দফতর তাদের নিজস্ব স্থায়ী কেন্দ্রগুলি থেকে বাকি ১৮ লক্ষ টন ধান। কিনবে। আর অতীতের অভিজ্ঞতার দিকে দৃষ্টি দিয়ে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক উপস্থিত সমবায় সমিতির কর্তাদের স্পষ্টভাবেই জানিয়ে দেন যে, চাষিদের চোখে যাতে জল দেখা না যায়, তা তাদেরই বিগত বছরে ধান সংগ্রহের যে কমিশন এখন পাননি, তাও মিটিয়ে দেওয়া হবে বলে খাদ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন। ধানের আদ্রতা চিহ্নিতকরণের জন্য এবার সরকারিভাবে প্রয়োজনীয় যন্ত্র দেওয়া হবে বলেও এদিন জানানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার কুইন্টাল প্রতি ধানের সংগ্ৰহ মূল্য ১ হাজার ৫৫০ টাকা ধার্য করেছে। সরকারি কেন্দ্ৰে যাঁরা ধান বিক্রি করতে আসবেন, তাদের কুইন্টালপ্রতি ২০ টাকা করে উৎসাহ ভাতা দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে। অর্থাৎ সরকারি কেন্দ্ৰে যাঁরা ধান বিক্রি পাবেন ১ হাজার ৫৭০ টাকা হিসেবে। আর ধান বিত্রির এই টাকা সরাসরি জমা হয়ে যাবে চাষিদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে।

--------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

If You have any Questions or Query You caan freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW

আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন ।


--------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
---------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------- If You have any Questions or Query You can freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন । #Don’t forget to share this post with your friends on social media

No comments:

Post a Comment

thanks for the comment

READ ALSO