সাম্বার ঝড় বনাম সিংহের গর্জন ,টিকিটের জন্য হাহাকার যুবভারতীতে । - TBNEWS

Breaking

TBNEWS

explore the world news

Post Top Ad

READ ALSO

                                                             

Wednesday, 25 October 2017

সাম্বার ঝড় বনাম সিংহের গর্জন ,টিকিটের জন্য হাহাকার যুবভারতীতে ।

সাম্বার ঝড় বনাম সিংহের গর্জন ,টিকিটের জন্য হাহাকার যুবভারতীতে ।techxpertbangla.com


চারিদিকে হাহাকার আর হাহাকার। একটা টিকিটের জন্যে শুধুই ছােটাছুটি। কোথায় পাওয়া যাবে একটা টিকিট। তার হদিশ খুঁজেই পাওয়া যাচ্ছে না। যদি একটা টিকিট পাওয়া যায় তাহলে সুনামির মতন।অাঁছড়ৃ পড়া যুবভারতি ক্রীঙ্গান ।যুব বিশ্বকাপের শেষ চারের ম্যাচ ব্রাজিল ও ইংল্যান্ডের। হঠাৎই পড়ে পাওয়া ষোলো আনার মতন এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি গুয়াহাটি থেকে কলকাতায় চলে আসার পরেই হইহই করে টিকিটের চাহিদা বাড়তে থাকে। তাই মঙ্গলবার ভোর হতেই বিভিন্ন কাউন্টারের সামনে ফুটবলপ্রেমিদের শুধুই ভিড় আর ভিড়। সল্টলেকের যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গণের সামনে থেকে মিলন মেলা না। হয়। কলকাতা ময়দানের তিনটি ক্লাকের সামনেও শুধুই মানুষ থিকথিক করছেন। সবারই একটাই কথা একটা টিকিট ।কোথায় টিকিট? ঘন্টার পর ঘন্টা দাঁড়িয়ে টিকিটের কোনো হোদিশ নেই ।অনেকই ক্ষুব্ধ হয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। পুলিশকে ছুটে আসতে হয়। মাইকে বারবার ঘোষণা করা হয় যাদের কাছে অনলাইনের কাগজ রয়েছে। তারাই শুধুই লাইনে থাকবেন। কোনওভাবেই অর্থের বিনিময়ে কোনও টিকিট দেওয়া হবেনা কিন্তু ফুটবল দর্শকরা কোনওভাবেই এই কথা মেনে নিতে চান না। তারা পুলিশের সামনে চিৎকার করে তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করতে দ্বিধা করেন না। তারা বলতে থাকেন। গতকাল রাত থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে যদি একটা টিকিট না পাওয়া যায় তাহলে কলকাতায় সতেরো বছর বয়সী। যুববিশ্বকাপ ফুটবলে খেলা সংগঠিত করার প্রয়োজন কী? ফুটবল তো সাধারণ মানুষের খেলা। তারাই যদি টিকিট না পান। তাহলে কলকাতার ঐতিহ্য বলতে কী। বোঝা যাবে। আসলে দর্শকরা সাক্ষী হয়ে থাকতে দেখবার জন্যে। আসলে রাতারাতি খেলার ভেনু পরিবর্তন হওয়াতে নানা রকম অসুবিধা দেখা দেয়। সেই কারণেই টিকিট সংগ্রহকারীদের মধ্যে একটা ক্ষোভ তৈরি হয় । ফিফার কতৃপক্ষ আগেই জানিয়েছিল যুববিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনাল ম্যাচ
', ' ' ব্ৰাজিল ও ইংল্যান্ডের খেলাটি কলকাতায় নিয়ে আসা হয়েছে। এই খেলা গুয়াহাটিতে নির্দিষ্ট ছিল। যারা ওয়াহাটিতে টিকিট কেটেছিলেন তারা কলকাতায় যদি আসেন সেই টিকিট দেখিয়ে নতুন টিকিট নিতে হবে। ওই টিকিটে তারা কলকাতায় ম্যাচ দেখতে পাবেন। আর যারা আসবেন না। তারা অনুরোধ করলে
টিকিটের দাম ফেরৎ দেওয়া হবে। কিন্তু প্রশ্ন হল কতজন দর্শক গুয়াহাটি থেকে কলকাতায় আসবেন। যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গণে আসন সংখ্যা ৬৬ হাজার। তার মধ্যে বেশ কিছু সৌজন্যমূলক কার্ড রয়েছে। আবার স্কুল ছাত্রছাত্রীদের জন্যে রয়েছে। ৫ হাজার টিকিট। সব মিলিয়েই বলতে পারা যায় বুধবারের ম্যাচে
যুবভারতী কানায় কানায় ভরে যাবে। তিলধারণের জায়গা থাকবে না। সেই কারণেই ব্ৰাজিল ও ইংল্যান্ডের ম্যাচটি এমন জায়গায় পৌছে যাবে যা নিয়ে দুই দলের মধ্যে একটা টক্কর থাকবে। একদিকে শক্তি প্রয়োগ করে মাঠ দােপানো আর অন্যদিকে শিল্পের ছোয়ায় মাঠ অন্য রঙে রঙিয়ে দেওয়া। সব মিলিয়ে বুধবারের সন্ধ্যায় যুবভারতী ক্রীরাঙ্গন ফুটবলারদের শিল্প লহময় ভরে উঠবে কোলকাতা সবসময় ব্রাজিলের সমর্থনে ফুটবলকে আরও সুন্দর করে। তোলে। সেই ভাবনাতেই কলকাতার ফুটবলপিপাসুরা ছুটে যাকেন যুবভারতী স্টেডিয়ামে। তবে ইংল্যান্ডের গর্জনকেও ছোট করে দেখা যাবে না। তাই খেলার মেজাজ কোন জায়গায় পৌছে যাবে তার আগাম ভাবনা প্রকাশ করতে কেউই পারছেন না। তবেই ইংল্যান্ডের কোচ কলকাতা ছাড়ার আগে বলেই গিয়েছিলেন আবার আমরা কলকাতায় খেলতে আসবো অবশ্য তিনি ভাবতেও পারেন নি সেমিফাইনাল ম্যাচটিা এখানে খেলতেই হবে। কোচের কথামত বলতেই হয় তাদের ফাইনাল খেলাটা ছিল। স্বপ্ন। কলকাতার মানুষের সঙ্গে একটা আত্মিক সম্পর্ক তৈরি হয়ে গিয়েছিল। সেই সম্পর্ককে আরও দৃঢ় করতে ওই ভাবনাকে প্রকাশ করেছিলেন। আর ব্রাজিলের কোচ কলকাতার দর্শকদের কাছে চিরখ{ণী হয়ে থাকবেন। একথা বলেছিলেন। তিনিও বলেছিলেন, কলকাতা আমাদের কাছে প্রাণ। প্রাণের তাগিদে আবার ছুটে আসবে কলকাতায়। এখন এমন একটা জায়গায় খেলার চরিত্র দাঁড়িয়ে আছে সেই জায়গা থেকে কে বাজিমাত করে ফাইনালে উঠে আসবে সেটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন। এখন একদিকে ব্ৰাজিল নির্ভর করবে: পাওলিনহো, বানর, লিংকন আর গোলরক্ষকেরউপরেই।কলকাতার দর্শক আর ইংল্যান্ডের বৈচিত্র্যােভরা ফুটবলার বুস্টার কি পারছেন না। নাই বা থাকলেন স্যাঞ্চোজ । হাডসন, গোমস ও ফোড়েনরা এলোমেলো করে দিতে পারেন সব পরিকল্পনাকে। সেটাও কিন্তু ভাববার বিষয়। অনেকেরই ধারণা ব্রাজিলের স্বপ্ন ঝরা সাম্বার ঘরানায় স্টেডিয়াম কথা বলে যাবে। আবার কখনও সমুদ্রের গর্জনের মতন ইংল্যান্ড ও হুঙ্কার দিয়ে স্টেডিয়াম মুখর করে তুলবে। পাশাপাশি ফুটবলের আবেগ ও মেজাজকে সামনে রেখেই বুধবারের যুবভারতী স্টেডিয়াম উত্তাল হয়ে কলকাতা। কলকাতা বুধবার ফুটবল অভিযানে মাতোয়ারা হয়ে উঠবে।



--------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

If You have any Questions or Query You can freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW

আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন ।


--------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
---------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------- If You have any Questions or Query You can freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন । #Don’t forget to share this post with your friends on social media

No comments:

Post a Comment

thanks for the comment

READ ALSO