এবার নজরকাড়া থিম বারাকপুরে। - TBNEWS

Breaking

TBNEWS

explore the world news

Post Top Ad

READ ALSO

                                                             

Wednesday, 18 October 2017

এবার নজরকাড়া থিম বারাকপুরে।


বারাকপুর, ১৭ অক্টোবর-বারাসতের সঙ্গে এবার উত্তর ২৪ পরগণার সোদপুরের জেলা ও বারাকপুরের পুজো উদ্যোক্তারা উপহার দিতে চলেছে নজর কাড়া থিমের কালীপুজো। শুধু পুজো করেই দায়সোরা নয়, চলছে নিত্যনতুন ভাবনার মধ্য দিয়ে একে অপরকে টেক্কা দেওয়ার পালা। ঘোলা বিদাসাগরপল্লি ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশনের পুজো এবার পদাৰ্পণ করল ২২তম বর্ষে। তাদের এবারের থিম ভাবনা 'ধন ধান্যে পুষ্পে ভরা, আমাদেরই বসুন্ধরা।" সম্পূর্ণ মণ্ডপটি তৈরি হচ্ছে ধানের সোলার আসলে। চটের উপর সান পাকের পেস্টিং তারিসঙ্গে চন্দননগরের চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জা দর্শনার্থীদের অরিন্দম বিশ্বাস। ঘোলার মুড়াগাছা যোগেন্দ্রনগরের = পারিজাত স্পোর্টিং ক্লাবের ২৫তম বর্ষে এবারের থিম বিশ্ব উষ্ণায়ণ’। দর্শনার্থীদের নজরে পড়বে একটি বিশালাকার বটগাছ থেকে বেরিয়ে রয়েছে মায়ের মূর্তি। একটি হাত ধরে মা ধরে রয়েছেন গাছ। আবার মায়ের একটি চোখ দিয়ে জল পড়ছে। যার মধ্য দিয়ে গাছনা কাটার থিম তুলে ধরা হয়েছে। ক্লাব সম্পাদক গীেরাঙ্গ সাহা বলেন, এখানে এলে দর্শনার্থীরা প্যাটেল বোটে করে ঠাকুর দেখার সুযোগ পাবেন। বিশেষ আকর্ষণ হিসাবে থাকছে মহিলা ঢাকিদের একটি দল। পিছিয়ে নেই। মুড়াগাছা আমরা কজনের ক্লাবও। ৩০তম বটে তাদের এবারের নিদর্শন নীেকোর ওপর একটি কাল্পনিক মন্দির। অসংখ্য ঝিনুক দিয়ে সাজিয়ে তোলা হয়েছে মণ্ডপ। ক্লাবে সম্পাদক বাবলু ঘোষ বলেন, প্রায় দেড় মাস ধরে ১৫ জন শিল্পী মণ্ডপ তৈরি করেছেন। ৫৭তম বর্ষে সোদপুর নাটাগরের শরৎপল্লী উন্নয়ন পরিষদের এবারের থিম মা আসছে ভেসে, হংস রাজের দেশে। মণ্ডপে ঢুকতেই দর্শনার্থীরা দেখতে পাবেন সরু নেটের উপর নীল কাপড় দিয়ে তাসের মাধ্যমে জলের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। যেখানে ভেসে বেড়াচ্ছে হাঁস। পুজার কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ দাম বলেন, মণ্ডপের সঙ্গে সাবেকি মাতৃ প্রতিমা এবার নজর কাড়বে। অন্যদিকে বারাকপুর ওয়ারলেসপাড়া যুবকবৃন্দও এবার পিছিয়ে নেই। ৬৪তম বর্ষে তাদের এবারের ভাবনা সবুজ রূপকথা। অর্থাৎ সবুজকে ধ্বংস না করে তাকে বাঁচিয়ে রাখার চিত্র তুলে ধরেছেন শিল্পীরা। প্লাই, থামেকিল, শুকনো গাছের ডালপালায় সবুজ কাপড়ের প্রকাশের মাধ্যমে ফুটে উঠেছে সবুজ বাঁচানোর চিত্র। পুজো উদ্যোক্তা অনুপ ঘোষ, রনজিৎ নদী বলেন, পাড়ার বয়স্ক পাঁচজন মহিলাকে নিয়ে == উদ্বোধন হবে তাদের পুজোর। থিম পুজোর লড়াইতে রয়েছে বারাকপুরের রবীন্দ্ৰপল্লি অ্যাথলেটিক ক্লাব। তারা এবার পা দিল ৬৩তম বর্ষে। তাদের এবারের ভাবনা বারো মাসে তেরো পার্বন। কাচের উপর ফেব্রিক দিয়ে তেরো পার্বনের চিত্র নিখুঁতভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন শিল্পীরা। মাতৃ প্রতিমায় রয়েছে অভিনবত্বের ছােঁয়া। পুজোর কর্মকর্তা গৌতম দাস বলেন, থিমের পুজোর পাশাপাশি সামাজিক দায়বদ্ধতার কথা মাথায় রেখে হেলমেটবিহীন বাইক আরোহীদের বুধবার উদ্বোধনের দিন হেলমেট প্রদান করা হবে। বারাকপুরের পূর্ব চাদমারির সূর্য শিবিরের শান্তি আরাধনায় এবার পদাৰ্পন করল ৩৩তম বর্ষে। এবার তাদের নিদর্শন পরীর দেশে। সিন্থেটিক তুলো ন্যাপকিন, কফি কাপ, দিয়ে তৈরি হয়েছে মাপ। পুজো উদ্যোক্তা অরূপে মণ্ডল, অরিন্দমা চ্যাটার্জি ওরফে অপু বলেন, মণ্ডপের ভিতরে পরীর সঙ্গে শোভা পাচ্ছে একটি বড় সাদা মেটা। যা বহন করছে শান্তির কর্তা। বুধবার অভিনেতা পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে উদ্বোধন হবে তাদের মণ্ডপের। অপরদিকে চাদমারি স্পোর্টিং ইউনিয়নের কালীপুজোয় এবারের মণ্ডপ তৈরি হচ্ছে রাঁচির একটি মন্দিরের আদলে। ৫৫তম বর্ষে তাদের মণ্ডপ তৈরি হচ্ছে বাঁশ, কাঠ, নারকেল, ছােবড়া দিয়ে। যেখানে সৃষ্টির একটি চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। যা দর্শনার্থীদের নজর কাড়বে বলে আশাবাদী উদ্যোক্তাদের সহযোগী গোপাল পাল। সবমিলিয়ে কে কাকে টক্কর দেয়।

twitter- ---------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------- If You have any Questions or Query You can freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন । #Don’t forget to share this post with your friends on social media

No comments:

Post a Comment

thanks for the comment

READ ALSO