অনুপ্রবেশকারীদেরকে মায়ানমারে ফেরানোর কপজ শুরু : সু কি - TBNEWS

Breaking

TBNEWS

explore the world news

Post Top Ad

READ ALSO

                                                             

Saturday, 28 October 2017

অনুপ্রবেশকারীদেরকে মায়ানমারে ফেরানোর কপজ শুরু : সু কি

photo credit-INT
অনুপ্রবেশকারীদেরকে মায়ানমারে ফেরানোর কপজ শুরু  : সু কি{www.techxpertbangla.com}


ঢাকা, ২৭ অক্টোবর- রাখাইন থেকে যারা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, তাদের ফিরিয়ে নিতে সরকার কাজ শুরু করেছে। বলে জানিয়েছেন মায়ানমার নেত্রী আঙ সাঙ সু। কি। মায়ানমার সফররত বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বুধবার ও ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষনেতা সু কি-র সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাদের মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে কথা হয়। সেখানে আন্তরিক পরিবেশে প্রায় এক ঘণ্টা তাদের মধ্যে কথা হয় বলে জানানো হয়েছে। আঙ সাঙ সুকি বলেছেন, বাংলাদেশে অবৈধ কাজ শুরু করেছে। কফি আন্নান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নেও তার সরকার কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল বৈঠকে সূ কি-কে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। সু কি দুই দেশের সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশ সফর করবেন বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়েছেন । ঠিক দুই মাস আগে রাখাইনের ৩০টি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনা ক্যাম্পে সমন্বিত হামলার পর ২৫ আগস্ট থেকে মায়ানমারের রোহিঙ্গা অধুষিত ওই অঞ্চলে নতুন করে সেনা অভিযান শুরু হয়, সেইসঙ্গে বাংলাদেশ সীমান্তে শুরু হয়। রোহিঙ্গাদের ঢাল। আট সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও রোহিঙ্গাদের আসা এখনও বন্ধ হয়নি। ইতিমধ্যে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে। বিভিন্ন সময়ে দমন-পীড়নের মুখে পালিয়ে আসা আরও চার লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছে। গত কয়েক দশক ধরে। রাখাইনে এবারের অভিযানে সেনাবাহিনী কিভাবে নির্বিচারে মানুষ মারছে, ধর্ষণ, লুন্ঠপট করছে, সেই বিবরণ আসছে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বিবরণে। স্যাটেলাইট ছবি বিশ্লেষণ করে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) বলেছে, অভিযান শুরুর পর এক মাসেই রাখাইনে ২৮৮টি রোহিঙ্গা গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে, সেই বর্বরতা এখনও অব্যাহত রয়েছে। মায়ানমারের নেত্রী সুকি সেনাবাহিনীর এই হিসেবে বর্ণনা করলেও জাতিসংঘ একে চিহ্নিত করেছে ‘জাতিগত নিমূল অভিযান' হিসেবে। ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা ভাবছে। সহিংসতা বন্ধের উদ্যোগ না নেওয়ায় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সমালোচনায় থাকা সু কি মঙ্গলবারই প্রথম রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে জাতির সামনে বক্তব্য দিলেন। রাখাইনে বসবাসের ইতিহাস থাকলেও ১৯৮২ সালে আইন করে তাদের নাগরিকত্ব থেকে বঞ্চিত করা হয়। মায়ানমারের সেনাবাহিনী এবং কৰ্ণনা করে আসছেন ‘বাঙালি সন্ত্রাসী" ও “অবৈধ অভিবাসী হিসেবে। সু কি নিজেও কখনও ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি বলেন না। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সমালোচনার মধ্যে গত ১৯ সেপ্টেম্বর পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে সু কি বলেন, ১৯৮২ সালে করা প্রত্যাবাসন চুক্তির আওতায় যাচাইয়ের মাধ্যমে’ বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া দেশ প্রস্তুত রয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় সু কি-র দফতরের মন্ত্রী কিয়া ত্যিন্ত সোয়ে অক্টোবরের শুরুতে ঢাকায় এলে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে দুই দেশে একটি ‘জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের বিষয়ে সম্মত হয়। প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার জন্য ওই বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে একটি দ্বিপক্ষীয় চুক্তির প্রস্তাব করে তার খসড়া ও হস্তান্তর করা হয়েছিল। তবে সে বিষয়ে মায়ানমারের জবাব এখনও জানা যায়নি। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে আলোচনার মধ্যেই দুই দেশের সীমান্ত নিরাপত্তা নিয়ে পূর্ব নির্ধারিত বৈঠকে অংশ নিতে গত সোমবার মায়ানমারে পৌঁছন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। মায়ানমারের কর্মকর্তাদের সঙ্গে তার বৈঠকগুলোতে স্বাভাবিকভাবেই রোহিঙ্গা সঙ্কটের বিষয়টি আসছে। মঙ্গলবার

কামাল। তিনি বলেন, আলোচনায় দুই দেশের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের কথা ওঠে। আমরা বলেছি, ৩০ নভেম্বরের মধ্যে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করতে হবে। জানা গিয়েছে, গত দুদিনে সচিব ও মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে যেসব সিদ্ধান্ত হয়েছে, সেসব বিষয়ে বুধবার মায়ানমারের নেত্রীকে অবহিত করেছেন। বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের সিদ্ধান্তের বিষয়টিও তাকে জানানো হয়েছে। সু কি এব্যাপারে একমত হয়েছেন। আসাদুজ্জামান খান কামাল সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জিরো টলারেন্স’ নীতির কথাও সু কি-কে বলেন।



--------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

If You have any Questions or Query You caan freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW

আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন ।


--------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------



---------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------- If You have any Questions or Query You can freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন । #Don’t forget to share this post with your friends on social media

No comments:

Post a Comment

thanks for the comment

READ ALSO