তেজস এক্সপ্রেসের ঘটনায় শিবসেনার খোঁচা দেখনবাজিতে, রেলযাত্রীদের প্রতি বিন্দুমাত্ৰ হাঁশ নেই । - TBNEWS

Breaking

TBNEWS

explore the world news

Post Top Ad

READ ALSO

                                                             

Wednesday, 18 October 2017

তেজস এক্সপ্রেসের ঘটনায় শিবসেনার খোঁচা দেখনবাজিতে, রেলযাত্রীদের প্রতি বিন্দুমাত্ৰ হাঁশ নেই ।



সরকারকে ফের খোঁচা শিবসেনার। এবার তেজস এক্সপ্রেসে অখাদ্য খাবার নিয়ে। দলের মুখপত্রে এদিনের সংস্করণে একটি সম্পাদকীয় লেখা হয়েছে। সম্পাদকীয় বলছে, সরকার এখন দেখানবাজিতে ব্যস্ত। ভারতীয় রেলে প্রতিদিন লাখ লাখ যাত্রী জীবনের ঝুঁকি যাওয়া আসা করেন। দুর্বল পরিকাঠামো। সে সব দিকে সরকারের কোনও নজর নেই। রেল যাত্রীদের যে নূনতম পরিষেবা পাওয়া দরকার সেই পরিষেবা দিতে সরকার চূড়ান্ত ব্যৰ্থ। ট্রেনে দেওয়া খাবার খেয়ে তেজস এক্সপ্রেসের বেশ কয়েকজন যাত্রীর অসুস্থ হওয়ার ঘটনাটি ঘটে রবিবার। ২২১২০ কারামালি-মুম্বই তেজস এক্সপ্রেসের ১৭০ জন যাত্রীকে দেওয়া হয় নিরামিষ খাবার এবং ১৩০ জন যাত্রীকে প্রাতঃরাশ দেওয়া হয়। খাবার খেয়ে তিন যাত্রীর অস্বস্তি শুরু হয়। পরে আরও ২১ জন যাত্রীও অস্বস্তি বোধ করতে শুরু করেন। মহারাষ্ট্রের চিপলুন স্টেশনে ট্রেন থামিয়ে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তদন্তে সাসপেন্ড করা হয় আইআরটিসি’র মন্দগাঁও এরিয়ার ম্যানেজার ও ট্রেনে থাকা ক্যাটারিং ম্যানেজারকে। সাসপেনশনের খবর দেন রেলের মুখপাত্র অনিল সাক্সেনা। শিবসানো এদিন এই ঘটনা নিয়ে মুখ খুলল। দলীয় সম্পাদকীয়তে লেখা হয়েছে, ‘প্রতি বছর ট্রেন দুর্ঘটনা মারা যান। ২০ হাজার থেকে ২৫ হাজার যাত্রী। পরিকাঠামাে অত্যন্ত দুর্বল।

সিগন্যালিং ব্যবস্থা মান্ধাতা আমলের। নতুন সিগন্যালিং ব্যবস্থা কবে চালু হবে তা কেউ জানে না। রেল যাত্রীদের নূ্যনতম পরিষেবা দিতে পারছে না। সরকার। সরকার শুধু ব্যস্ত লোকদেখানোয়। ট্রেনে যে খাবার খেতে দেওয়া হয় তা মুখেও তোলা যায় না। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে ট্রেন যাত্রীরা এখন অভিযোগ জানাতেও চায় না। ধরেই নেওয়া হয়েছে এটাই দস্তুর।” তেজস এক্সপ্রেসের যাত্রীদের এমন নিম্নমানের খাবার দেওয়া নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে শিবসেনার দলীয় মুখপত্রে সম্পাদকীয়। কয়েকজন যাত্রী খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তদন্তে উঠে আসে খাদ্যে বিষক্রিয়ার ফলেই এটা হয়েছে। এই ঘটনার জন্য সাসপেন্ড হয়েছেন কয়েকজন | প্রশ্ন অন্য জায়গায় তেজস এক্সপ্রেসের টিকিটের দাম আর বিমানের টিকিটের দাম কাছাকাছি। তারপরেও ট্রেনে ওই রকম নিম্নমানের খাবার পরিবেশন করা হল কী করে?” এই ব্যাপারে। পূর্বতন রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভুর দেওয়া প্রতিশ্রুতির কথাও তুলে ধরে সম্পাদকীয়। সম্পাদকীয় বলছে, আগে যিনি রেলমন্ত্রী ছিলেন তিনি বলেছিলেন, রেলের ক্যাটারিং সার্ভিসের উন্নতি হবে। ভাল মানের খাবার দেওয়া হবে যাত্রীদের। কিছুই যে হয়নি। সেটা তেজাস এক্সপ্রেসের ঘটনায় প্রমাণ হয়ে গেল।” শিবসেনা এই প্রথম ভারতীয় রেলের পরিষেবা নিয়ে প্রশ্ন তুলল তা নয়। গুজরাতে প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং জাপানের প্রধানমন্ত্ৰী আবে
যেদিন বুলেট ট্রেনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। সেদিনাও দলীয় মুখপত্রে একটি সম্পাদকীয় লেখা হয়। সেদিনের প্রকাশিত সংস্করণের সম্পাদকীয় বলছে, “আমরা একটি বুলেট ট্রেন পেতে চলেছি। কিন্তু যেটা জানা যাচ্ছে না তা হল এই সমস্যার সমাধান করবে। কোন সমস্যা ? “বুলেট ট্রেন দিয়ে হবেটা কী’ – প্রশ্ন শিবসেনার। এরপরেই দলীয় মুখপত্রে বলা হয়েছে স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর কথা। শিবসেনার মুখপত্র লিখছে, “পণ্ডিত নেহরু বেশ কয়েকটি প্রকল্পের শিলান্যাস করেন। যেমন ভাকরা-নাঙ্গাল প্রকল্প, ভাবা আণবিক গবেষণা কেন্দ্ৰ। এই প্রকল্পগুলি ছিল জাতীয় স্বার্থে। দেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নতির স্বার্থে পণ্ডিতজি এই সব প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। কিন্তু ভারতের বুলেট ট্রেন কীসের স্বার্থে ?” যে কথা কংগ্রেস এতোদিন প্রধানমন্ত্রীর সম্বন্ধে বলে এসেছিল, শিবসেনার মুখে সেকথাই এদিন শোনা গেল। দলীয় মুখপত্রে বলা হয়েছে, বুলেট ট্রেন আম-আদমির স্বপ্ন নয়। মোদির স্বপ্নের বুলেট ট্রেন আম আদমির জন্য নয়। এই ট্রেন ধনী আর শিল্পপতিদের জন্য।” প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং সরকারের দাবি, এই প্রকল্পের ফলে ভারতে কর্মসংস্থানের সুযোগ ঘটবে। শিবসেনার মুখপত্রে লেখা হয়েছে পুরোটাই ধাপ্লাবাজি। জাপান এতো বোকা না যে তারা এদেশের ছেলে মেয়েদের কাজের সুযোগ করে দেবে। তারা আসবে যন্ত্রপাতি,লোকলস্কর নিয়েই।
---------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------- If You have any Questions or Query You can freely ask by put Your valuable comments in the COMMENT BOX BELOW আপনার যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে আপনি নিচে COMMENT BOX এ আপনার মূল্যবান মন্তব্যগুলি করতে পারেন । #Don’t forget to share this post with your friends on social media

No comments:

Post a Comment

thanks for the comment

READ ALSO